বাঘায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে কাজির ৬মাসের কারাদন্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক :

মুসলিম নিকাহ্ রেজিষ্ট্রারে নাম নেই। তার পরেও নিজেকে কাজির সহকারি দাবি করেন হুমায়ন কবির (৩৭)। সেই সুবাদে বিয়ে রেজিষ্ট্রি করেন তিনি।

বাঘার স্থানীয় একটি পার্কে অপ্রাপ্ত বয়সের ছেলে-মেয়ের বিয়ে দেওয়ার ঘটনায় পুলিশের হাতে আটকের পর জালিয়াতি করে বিয়ে রেজিষ্ট্রির ঘটনাটি ধরা পড়ে তার।

গতকাল রোববার (৩-জানুয়ারী’২১) রাজশাহীর বাঘা পৌরসভার উৎসব পার্ক থেকে হুমায়ন কবির নামের ওই ভ’য়া কাজিকে আটক করে পুলিশ।

পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে নেয়ার পর ছয় মাসের কারা দন্ডের রায় প্রদান করেন আদালতের নির্বাহি ম্যাজিষ্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) কামাল হোসেন । দন্ডপ্রাপ্ত হুমায়ন কবির উপজেলার ছাতারী গ্রামের কায়েম উদ্দিনের ছেলে বলে জানা গেছে।

পুলিশ জানায়, উৎসব পার্কে অপ্রাপ্ত বয়স্ক ছেলে-মেয়ের বিয়ে রেজিষ্ট্রি করেন কাজির সহকারি পরিচয়দানকারি হুমায়ন কবির।

এ সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাকে আটক করা হয়। তাকে ভ্রাম্যমান আদালতের এর কার্যালয়ে নেওয়ার পর অপরাধ স্বীকার করেন তিনি। আদালতের নির্বাহি ম্যাজিষ্ট্রেট তাঁকে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ডের রায় প্রদান করেন। নির্বাহি ম্যাজিষ্ট্রেট কামাল হোসেন জানান,

তার কাছে দাখিলকৃত কাগজপত্রে নিকাহ রেজিষ্ট্রারের সহকারি কাজি হিসেবে সঠিক প্রমান মেলেনি। এছাড়াও বাল্যবিয়ে রেজিষ্ট্রি করেছেন।

রাজশাহী মুসলিম নিকাহ্ রেজিষ্ট্রার সংগঠনের সভাপতি কাজি মোহাম্মদ নুরুল আলম বলেন, উপজেলা পর্যায়ে যারা কাজির দায়িত্ব পালন করেন তাদের মধ্যে ইউনিয়ন এবং পৌর সভার অধীনে একজন প্রধান কাজি হিসেবে নিয়োগ পান।

তাদের মাধ্যমে একের অধিক সহকারী কাজি হিসেবে কাজ করে থাকেন। সেই ক্ষেত্রে হুমায়ন কবির নিজেকে সহকারী কাজি দাবি করলেও নিয়োগপ্রাপ্ত কাজির রেজিষ্ট্রারে তার কোন সংশ্লিষ্টতা নেই । অফিসার ইনচার্জ নজরুল ইসলাম (ওসি) কারাদন্ডের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *