নিয়ামতপুরে গৃহবধূর চুল কেটে নির্যাতন, স্বামী-শাশুড়ী গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক :

নওগাঁর নিয়ামতপুরে স্বামীর চাহিদামতো যৌতুক দিতে না পারায় এক গৃহবধূর চুল কেটে নির্যাতন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। নির্যাতনের শিকার গৃহবধূকে নিয়ামতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এই ঘটনায় গৃহবধূর স্বামী ও শাশুড়ীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। নির্যাতনের অভিযোগে গৃহবধূর মা বাদী হয়ে আজ বুধবার নিয়ামতপুর থানায় মামলা করেছেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ১৬ বছর আগে উপজেলার ভাবিচা ইউনিয়নের আমইল সোনারপাড়া গ্রামের মৃত- আছির উদ্দিনের ছেলে আব্দুর রাজ্জাকের সঙ্গে বিয়ে হয় নির্যাতনের শিকার গৃহবধূর।

বিয়ের পর থেকে যৌতুকের জন্য প্রায়ই ওই গৃহবধূকে নির্যাতন করতেন তাঁর স্বামী। প্রায় সময় স্বামী আব্দুর রাজ্জাক যৌতুক হিসাবে ১ লক্ষ টাকা দাবী করে উক্ত গৃহবধুকে শারীরিক নির্যাতন করতো।

গত ১৫ ডিসেম্বর গৃহবধুর শাশুড়ী মোসাঃ রহিমা (৫০) এর প্ররোচনায় স্বামী আব্দুর রাজ্জাক পুনরায় যৌতুক দাবী করে মাথার চুক কেটে দেয় এবং শারীরিক নির্যাতন করে। কারো সাথে যোগাযোগ করতে দেয় না।

এমনটি মাকেও দেখা করতে দেয় না। মা দেখা করতে চাইলে আব্দুর রাজ্জাক বলে আপনার মেয়ে ভালে আছে আগে যৌতুকের টাকা নিয়ে আসেন তারপর দেখা করেন।

হঠাৎ গত ৫ জানুয়ারী মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় যৌতুকের দাবীতে উক্ত গৃহবধুকে আবারো শাশুড়ীর প্ররোচনায় স্বামী আব্দুর রাজ্জাক শারীরিক নির্যাতন করে মাটিতে ফেলে রাখে। প্রতিবেশীর মাধ্যমে মা সংবাদটি পেলে মাকে গৃহবধুর সাথে দেখা করতে দেয় না।

মা নিরুপায় হয়ে থানায় এসে অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ তাৎক্ষনিক ফোর্স পাঠিয়ে গৃহবধুকে উদ্ধার করে নিয়ামতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

নিয়ামতপুর থানার অফিসার ইন চার্জ (ওসি) হুমায়ন কবির বলেন, নির্যাতনের ঘটনায় গৃহবধূর মা থানায় একটি মামলা করেছেন। মামলা হওয়ার পর অভিযান চালিয়ে গৃহবধূর স্বামী ও শাশুড়ীকে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *